ঢাকা ১১:৫৪ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

শিক্ষার্থীর পা ধরে ক্ষমা চাইলেন ছাত্রলীগের নেত্রী

অভিযুক্ত সানজিদা চৌধুরী অন্তরা। ছবি: সংগৃহীত

কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) দেশরত্ন শেখ হাসিনা হলে নির্যাতনের শিকার ছাত্রীর হাতেপায়ে ধরে ক্ষমা চেয়েছেন ছাত্রলীগ নেত্রী অভিযুক্ত সানজিদা চৌধুরী অন্তরা।

বুধবার (২২ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী।

এর আগে বিশ্ববিদ্যালয়ের মীর মোশাররফ হোসেন ভবনের আইন বিভাগে তাদের নিয়ে আসা হয়। পরে বিশ্ববিদ্যালয় তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. রেবা মন্ডলের কক্ষে তাদের জিজ্ঞাসাবাদ শুরু হয়। সেখানে উপস্থিত ছিলেন তদন্ত কমিটির অন্য সদস্যরাও।

তদন্ত শেষে নির্যাতনের শিকার হওয়া ওই ছাত্রী বলেন, অভিযুক্ত সানজিদা চৌধুরী অন্তরা আমার হাত-পায়ে ধরে ক্ষমা চেয়েছে। বলেছেন, আমাকে মাপ করে দাও।

তার প্রতিউত্তরে ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী বলেন, ‘৪-৫ দিন আগে আপনারা আমাকে র‍্যাগিং করলেন। এখন সবকিছু প্রশাসনের হাতে আমার কিছু করার নেই। সেসময়ে আপনারা আমাকে নিয়ে ভাবেননি।’

ইবির দেশরত্ন শেখ হাসিনা হলে গত ১১ ও ১২ ফেব্রুয়ারি দুই দফায় ফিন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং বিভাগের ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষের এক ছাত্রীকে রাতভর র‍্যাগিং, শারীরিকভাবে নির্যাতন ও বিবস্ত্র করে ভিডিও ধারণ করার অভিযোগ ওঠে। এ ঘটনায় শাখা ছাত্রলীগ সহসভাপতি সানজিদা চৌধুরী অন্তরা ও ফিন্যান্স বিভাগের ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের তাবাসসুমসহ আরও ৭-৮ জন জড়িত ছিলেন বলে অভিযোগ ভুক্তভোগী ছাত্রীর।

ট্যাগস

আলিশান চাল, নওগাঁ

বিজ্ঞাপন দিন

শিক্ষার্থীর পা ধরে ক্ষমা চাইলেন ছাত্রলীগের নেত্রী

আপডেট সময় ০৫:৩৭:৩৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) দেশরত্ন শেখ হাসিনা হলে নির্যাতনের শিকার ছাত্রীর হাতেপায়ে ধরে ক্ষমা চেয়েছেন ছাত্রলীগ নেত্রী অভিযুক্ত সানজিদা চৌধুরী অন্তরা।

বুধবার (২২ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী।

এর আগে বিশ্ববিদ্যালয়ের মীর মোশাররফ হোসেন ভবনের আইন বিভাগে তাদের নিয়ে আসা হয়। পরে বিশ্ববিদ্যালয় তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. রেবা মন্ডলের কক্ষে তাদের জিজ্ঞাসাবাদ শুরু হয়। সেখানে উপস্থিত ছিলেন তদন্ত কমিটির অন্য সদস্যরাও।

তদন্ত শেষে নির্যাতনের শিকার হওয়া ওই ছাত্রী বলেন, অভিযুক্ত সানজিদা চৌধুরী অন্তরা আমার হাত-পায়ে ধরে ক্ষমা চেয়েছে। বলেছেন, আমাকে মাপ করে দাও।

তার প্রতিউত্তরে ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী বলেন, ‘৪-৫ দিন আগে আপনারা আমাকে র‍্যাগিং করলেন। এখন সবকিছু প্রশাসনের হাতে আমার কিছু করার নেই। সেসময়ে আপনারা আমাকে নিয়ে ভাবেননি।’

ইবির দেশরত্ন শেখ হাসিনা হলে গত ১১ ও ১২ ফেব্রুয়ারি দুই দফায় ফিন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং বিভাগের ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষের এক ছাত্রীকে রাতভর র‍্যাগিং, শারীরিকভাবে নির্যাতন ও বিবস্ত্র করে ভিডিও ধারণ করার অভিযোগ ওঠে। এ ঘটনায় শাখা ছাত্রলীগ সহসভাপতি সানজিদা চৌধুরী অন্তরা ও ফিন্যান্স বিভাগের ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের তাবাসসুমসহ আরও ৭-৮ জন জড়িত ছিলেন বলে অভিযোগ ভুক্তভোগী ছাত্রীর।