ঢাকা ১০:৫১ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আফগানিস্তানে বন্দুকধারীসহ আত্মঘাতী বোমা হামলা, নিহত ৪০

আফগানিস্তানে বন্দুকধারীসহ আত্মঘাতী বোমা হামলা (প্রতীকী ছবি)

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ   দুটি পৃথক হামলার ঘটনায় আফগানিস্তানে নবজাতকসহ অন্তত ৪০ জন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এসব হামলার ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও প্রায় ৬৮ জন।

দেশটির রাজধানী কাবুলের একটি হাসপাতালে বন্দুকধারীদের হামলা ও নানগারহার প্রদেশে এক পুলিশ কমান্ডারের শেষকৃত্যে আত্মঘাতী বোমা হামলায় এই হতাহতের ঘটনা ঘটে।

মঙ্গলবার (১২ মে) পুলিশের ছদ্মবেশে আসা বন্দুকধারীরা রাজধানী কাবুলের একটি হাসপাতালে হামলা চালায়। এতে আন্তর্জাতিক দাতব্য সংস্থা ডক্টরস উইদাউট বর্ডার পরিচালিত একটি মাতৃসদনে দুই নবজাতকসহ ১৬ জন নিহত হন।

একই দিন পূর্বাঞ্চলীয় নানগাহার প্রদেশে পৃথক আরেকটি হামলার ঘটনা ঘটে। এখানে এক পুলিশ কমান্ডারের জানাজায় আত্মঘাতী বোমা হামলায় অন্তত ২৪ জন নিহত ও ৬৮ জন আহত হন। এই জানাজায় সরকারি কর্মকর্তারা ও পার্লামেন্টের এক সদস্য উপস্থিত ছিলেন।

দেশটির সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে।

এ দিকে, ইসলামিক স্টেটের (আইএস) আফগানিস্তান শাখা ইসলামিক স্টেট খোরাসান নানগাহারের হামলার দায় স্বীকার করেছে বলে সাইট ইন্টেলিজেন্স গোষ্ঠী জানিয়েছে। তবে অনলাইনে জঙ্গিদের তৎপরতার ওপর নজরদারি করা সাইটের প্রতিবেদন তাৎক্ষণিভাবে যাচাই করতে পারেনি বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

আর তাৎক্ষণিভাবে কোনো গোষ্ঠী কাবুলের হামলার দায়ও স্বীকার করেনি।

আফগানিস্তানের প্রধান জঙ্গি গোষ্ঠী তালেবান দুটি হামলার কোনোটিতেই তারা জড়িত নেই বলে দাবি করেছে। যুক্তরাষ্ট্রের সেনা প্রত্যাহার নিয়ে করা চুক্তি অনুযায়ী শহরগুলোতে হামলা করা বন্ধ রেখেছে বলে জানিয়েছে তারা।

ট্যাগস

আলিশান চাল, নওগাঁ

বিজ্ঞাপন দিন

আফগানিস্তানে বন্দুকধারীসহ আত্মঘাতী বোমা হামলা, নিহত ৪০

আপডেট সময় ১২:৩৪:৩২ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৩ মে ২০২০

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ   দুটি পৃথক হামলার ঘটনায় আফগানিস্তানে নবজাতকসহ অন্তত ৪০ জন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এসব হামলার ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও প্রায় ৬৮ জন।

দেশটির রাজধানী কাবুলের একটি হাসপাতালে বন্দুকধারীদের হামলা ও নানগারহার প্রদেশে এক পুলিশ কমান্ডারের শেষকৃত্যে আত্মঘাতী বোমা হামলায় এই হতাহতের ঘটনা ঘটে।

মঙ্গলবার (১২ মে) পুলিশের ছদ্মবেশে আসা বন্দুকধারীরা রাজধানী কাবুলের একটি হাসপাতালে হামলা চালায়। এতে আন্তর্জাতিক দাতব্য সংস্থা ডক্টরস উইদাউট বর্ডার পরিচালিত একটি মাতৃসদনে দুই নবজাতকসহ ১৬ জন নিহত হন।

একই দিন পূর্বাঞ্চলীয় নানগাহার প্রদেশে পৃথক আরেকটি হামলার ঘটনা ঘটে। এখানে এক পুলিশ কমান্ডারের জানাজায় আত্মঘাতী বোমা হামলায় অন্তত ২৪ জন নিহত ও ৬৮ জন আহত হন। এই জানাজায় সরকারি কর্মকর্তারা ও পার্লামেন্টের এক সদস্য উপস্থিত ছিলেন।

দেশটির সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে।

এ দিকে, ইসলামিক স্টেটের (আইএস) আফগানিস্তান শাখা ইসলামিক স্টেট খোরাসান নানগাহারের হামলার দায় স্বীকার করেছে বলে সাইট ইন্টেলিজেন্স গোষ্ঠী জানিয়েছে। তবে অনলাইনে জঙ্গিদের তৎপরতার ওপর নজরদারি করা সাইটের প্রতিবেদন তাৎক্ষণিভাবে যাচাই করতে পারেনি বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

আর তাৎক্ষণিভাবে কোনো গোষ্ঠী কাবুলের হামলার দায়ও স্বীকার করেনি।

আফগানিস্তানের প্রধান জঙ্গি গোষ্ঠী তালেবান দুটি হামলার কোনোটিতেই তারা জড়িত নেই বলে দাবি করেছে। যুক্তরাষ্ট্রের সেনা প্রত্যাহার নিয়ে করা চুক্তি অনুযায়ী শহরগুলোতে হামলা করা বন্ধ রেখেছে বলে জানিয়েছে তারা।