ঢাকা ১১:৪১ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কিমকে সাহায্য করবেন ট্রাম্প করোনা মোকাবিলায়

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ  মহামারি করোনা ভাইরাসে (কোভিড-১৯) বিশ্বব্যাপী সাড়ে ১৪ হাজারের অধিক লোকের প্রাণহানি ঘটেছে। এমন পরিস্থিতিতে প্রাণঘাতী ভাইরাসটির বিরুদ্ধে চলমান লড়াইয়ে উত্তর কোরিয়াকে সাহায্য করার প্রস্তাব দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। 

সংবাদমাধ্যম সিএনএন জানিয়েছে, সম্প্রতি দেশটির সর্বোচ্চ নেতা কিম জং উনের কাছে ব্যক্তিগত একটি চিঠি পাঠিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। সেখানে তিনি উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে সম্পর্ক উন্নয়নের পাশাপাশি চলমান করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় কার্যকরী পদক্ষেপ নিয়ে কথা বলেন।

রবিবার (২২ মার্চ) কিম জং উনের বোন কিম ইয়ো জং বিবৃতির মাধ্যমে ট্রাম্পের পাঠানো চিঠির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। চিঠিতে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের বিরুদ্ধে উত্তর কোরিয়াকে সব ধরনের সহায়তার প্রস্তাব দিয়েছেন।

বিশ্লেষকদের মতে, সম্প্রতি জাপান সাগরে দুটি ব্যালেস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করেছিল উত্তর কোরিয়া। গোটাবিশ্ব যখন করোনা ইস্যুতে উদ্বিগ্ন ঠিক তখনই উত্তর কোরিয়ার এমন কর্মকাণ্ড নতুন করে সমালোচনার জন্ম দিয়েছে। যদিও পিয়ংইয়ংয়ের দাবি, দেশটিতে একজনও করোনায় আক্রান্ত রোগী নেই।

মার্কিন স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, দেশটিতে এখন পর্যন্ত প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৩৩ হাজার ৫৪৬ জন। তাছাড়া মারা গেছেন আরও ৪১৯ জন।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) জানিয়েছে, উৎপত্তিস্থল চীনের সীমা অতিক্রম করে এর মধ্যে বিশ্বের অন্তত ১৯২টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস। বিশ্বব্যাপী ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ৩ লাখ ৩৭ হাজার মানুষ। আর করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যাও এরই মধ্যে ১৪ হাজার ৬৪৭ জনে পৌঁছেছে।

চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, করোনা ভাইরাস মানুষ ও প্রাণীদের ফুসফুসে সংক্রমণ করতে পারে। ভাইরাসজনিত ঠান্ডা বা ফ্লুর মতো হাঁচি-কাশির মাধ্যমে মানুষ থেকে মানুষে ছড়িয়ে পড়ছে এই ভাইরাস। ভাইরাসটিতে সংক্রমিত হওয়ার প্রধান লক্ষণগুলো হলো- শ্বাসকষ্ট, জ্বর, কাশি, নিউমোনিয়া ইত্যাদি। তাছাড়া শরীরের এক বা একাধিক অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ নিষ্ক্রিয় হয়ে আক্রান্ত ব্যক্তির মৃত্যু হতে পারে।

বর্তমানে সবচেয়ে আতঙ্কের বিষয় হলো ভাইরাসটি নতুন হওয়ায় এখনো আনুষ্ঠানিকভাবে কোনো প্রতিষেধক আবিষ্কার হয়নি। ভাইরাসটির সংক্রমণ থেকে বাঁচার একমাত্র উপায় সংক্রমিত ব্যক্তিদের থেকে দূরে থাকা। তাই মানুষের শরীরে এমন উপসর্গ দেখা দিলেই দ্রুত চিকিৎসকের শরণাপন্ন হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন বিজ্ঞানীরা।

ট্যাগস

আলিশান চাল, নওগাঁ

বিজ্ঞাপন দিন

কিমকে সাহায্য করবেন ট্রাম্প করোনা মোকাবিলায়

আপডেট সময় ০৪:০০:১৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৩ মার্চ ২০২০

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ  মহামারি করোনা ভাইরাসে (কোভিড-১৯) বিশ্বব্যাপী সাড়ে ১৪ হাজারের অধিক লোকের প্রাণহানি ঘটেছে। এমন পরিস্থিতিতে প্রাণঘাতী ভাইরাসটির বিরুদ্ধে চলমান লড়াইয়ে উত্তর কোরিয়াকে সাহায্য করার প্রস্তাব দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। 

সংবাদমাধ্যম সিএনএন জানিয়েছে, সম্প্রতি দেশটির সর্বোচ্চ নেতা কিম জং উনের কাছে ব্যক্তিগত একটি চিঠি পাঠিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। সেখানে তিনি উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে সম্পর্ক উন্নয়নের পাশাপাশি চলমান করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় কার্যকরী পদক্ষেপ নিয়ে কথা বলেন।

রবিবার (২২ মার্চ) কিম জং উনের বোন কিম ইয়ো জং বিবৃতির মাধ্যমে ট্রাম্পের পাঠানো চিঠির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। চিঠিতে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের বিরুদ্ধে উত্তর কোরিয়াকে সব ধরনের সহায়তার প্রস্তাব দিয়েছেন।

বিশ্লেষকদের মতে, সম্প্রতি জাপান সাগরে দুটি ব্যালেস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করেছিল উত্তর কোরিয়া। গোটাবিশ্ব যখন করোনা ইস্যুতে উদ্বিগ্ন ঠিক তখনই উত্তর কোরিয়ার এমন কর্মকাণ্ড নতুন করে সমালোচনার জন্ম দিয়েছে। যদিও পিয়ংইয়ংয়ের দাবি, দেশটিতে একজনও করোনায় আক্রান্ত রোগী নেই।

মার্কিন স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, দেশটিতে এখন পর্যন্ত প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৩৩ হাজার ৫৪৬ জন। তাছাড়া মারা গেছেন আরও ৪১৯ জন।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) জানিয়েছে, উৎপত্তিস্থল চীনের সীমা অতিক্রম করে এর মধ্যে বিশ্বের অন্তত ১৯২টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস। বিশ্বব্যাপী ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ৩ লাখ ৩৭ হাজার মানুষ। আর করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যাও এরই মধ্যে ১৪ হাজার ৬৪৭ জনে পৌঁছেছে।

চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, করোনা ভাইরাস মানুষ ও প্রাণীদের ফুসফুসে সংক্রমণ করতে পারে। ভাইরাসজনিত ঠান্ডা বা ফ্লুর মতো হাঁচি-কাশির মাধ্যমে মানুষ থেকে মানুষে ছড়িয়ে পড়ছে এই ভাইরাস। ভাইরাসটিতে সংক্রমিত হওয়ার প্রধান লক্ষণগুলো হলো- শ্বাসকষ্ট, জ্বর, কাশি, নিউমোনিয়া ইত্যাদি। তাছাড়া শরীরের এক বা একাধিক অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ নিষ্ক্রিয় হয়ে আক্রান্ত ব্যক্তির মৃত্যু হতে পারে।

বর্তমানে সবচেয়ে আতঙ্কের বিষয় হলো ভাইরাসটি নতুন হওয়ায় এখনো আনুষ্ঠানিকভাবে কোনো প্রতিষেধক আবিষ্কার হয়নি। ভাইরাসটির সংক্রমণ থেকে বাঁচার একমাত্র উপায় সংক্রমিত ব্যক্তিদের থেকে দূরে থাকা। তাই মানুষের শরীরে এমন উপসর্গ দেখা দিলেই দ্রুত চিকিৎসকের শরণাপন্ন হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন বিজ্ঞানীরা।