ঢাকা ১২:০৪ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪, ৪ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সরকারি প্রণোদনা দাবিতে আলোচনা সভা, হোটেল শ্রমিকদের

সভায় অতিথিরা।

 

সিলেট প্রতিনিধি: বিশ্বব্যাপী মহামারি করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় লকডাউনের কারণে সারাদেশব্যাপী প্রায় ৪০ লাখ হোটেল শ্রমিকরা কর্মহীন হয়ে পড়েছেন।

গত প্রায় তিন মাস ধরে কর্মহীন হয়ে মানবেতন জীবনযাপন করা শ্রমিকদের প্রণোদনা ঘোষণা করতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন হোটেল শ্রমিক ইউনিয়নের নেতারা।

শুত্রবার (০১ মে) মে দিবস উপলক্ষে সিলেটে আয়োজিত আলোচনা্ সভায় বক্তারা এ দাবি তুলে ধরে বলেন, দিবসটি শ্রমিকদের দাবি আদায়ের। তাই সরকারের কাছে এ দাবি জানাতে চাই।

রমজান মাসে লকডাউনে ভালো নেই হোটেল-রেস্তোরাঁ শ্রমিকরা। হোটেল শ্রমিকদের বকেয়া ও ঈদ উৎসব বোনাসসহ পুরো মে মাসের বেতনের দাবি জানান তারা। সেইসঙ্গে শ্রমিকদের জন্য সরকারের তরফ থেকে প্রণোদনা দেওয়ার আহ্বান জানান।

দুপুরে নগরের তালতলায় অস্থায়ী কার্যালয়ে শ্রমিকদের দাবি আদায়ের লক্ষ্যে সিলেট জেলা হোটেল শ্রমিক ইউনিয়নের উদ্যোগে শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সিলেট জেলা হোটেল শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মো. আরিফুল ইসলামের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক এম শফর আলী খানের পারিচালনায় এসময় বক্তব্য রাখেন- সিলেট জেলা হোলেট শ্রমিক ইউনিয়নের উপদেষ্টা মো. নুরুল ইসলাম মকবুল, সহ-সভাপতি মো. ইউসুফ জামিল, মোজাম্মেল আলী, মহানগর কমিটির সহ-সভাপতি হারুন রশিদ মিয়া, মহানগর কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক মো. হারুনুর রশিদ।

উপস্থিত ছিলেন- সংগঠনের ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক মো. আন্তর ইসলাম জাবেদ, নগর মহিলা কমিটির সভাপতি লিলি বেগম ও সাধারণ সম্পাদক  রিনা বেগম প্রমুখ।

এছাড়া করোনা ভাইরাস পরিস্থিতিতে লকডাউনের মধ্যে মিছিল, সমাবেশ না করে শারীরিক দূরত্ব রেখে হাতে লেখা ফেস্টুনে নিজেদের দাবি তুলে ধরেন শ্রমিকরা।

কেবল জীবন ধারণের জন্য তাদের এসব দাবি। এরমধ্যে ছিল ‘জাতীয় নিম্নতম মজুরি ঘোষণা করতে হবে’, ৮ ঘণ্ট কাজ চাই, বাঁচার মতো মজুরি চাই’, শ্রম দাসত্বের চির অবসান ঘটানো ছাড়াও মৌলিক অধিকারের দাবি।

ট্যাগস

আলিশান চাল, নওগাঁ

বিজ্ঞাপন দিন

সরকারি প্রণোদনা দাবিতে আলোচনা সভা, হোটেল শ্রমিকদের

আপডেট সময় ০৪:৫৪:০২ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১ মে ২০২০

 

সিলেট প্রতিনিধি: বিশ্বব্যাপী মহামারি করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় লকডাউনের কারণে সারাদেশব্যাপী প্রায় ৪০ লাখ হোটেল শ্রমিকরা কর্মহীন হয়ে পড়েছেন।

গত প্রায় তিন মাস ধরে কর্মহীন হয়ে মানবেতন জীবনযাপন করা শ্রমিকদের প্রণোদনা ঘোষণা করতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন হোটেল শ্রমিক ইউনিয়নের নেতারা।

শুত্রবার (০১ মে) মে দিবস উপলক্ষে সিলেটে আয়োজিত আলোচনা্ সভায় বক্তারা এ দাবি তুলে ধরে বলেন, দিবসটি শ্রমিকদের দাবি আদায়ের। তাই সরকারের কাছে এ দাবি জানাতে চাই।

রমজান মাসে লকডাউনে ভালো নেই হোটেল-রেস্তোরাঁ শ্রমিকরা। হোটেল শ্রমিকদের বকেয়া ও ঈদ উৎসব বোনাসসহ পুরো মে মাসের বেতনের দাবি জানান তারা। সেইসঙ্গে শ্রমিকদের জন্য সরকারের তরফ থেকে প্রণোদনা দেওয়ার আহ্বান জানান।

দুপুরে নগরের তালতলায় অস্থায়ী কার্যালয়ে শ্রমিকদের দাবি আদায়ের লক্ষ্যে সিলেট জেলা হোটেল শ্রমিক ইউনিয়নের উদ্যোগে শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সিলেট জেলা হোটেল শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মো. আরিফুল ইসলামের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক এম শফর আলী খানের পারিচালনায় এসময় বক্তব্য রাখেন- সিলেট জেলা হোলেট শ্রমিক ইউনিয়নের উপদেষ্টা মো. নুরুল ইসলাম মকবুল, সহ-সভাপতি মো. ইউসুফ জামিল, মোজাম্মেল আলী, মহানগর কমিটির সহ-সভাপতি হারুন রশিদ মিয়া, মহানগর কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক মো. হারুনুর রশিদ।

উপস্থিত ছিলেন- সংগঠনের ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক মো. আন্তর ইসলাম জাবেদ, নগর মহিলা কমিটির সভাপতি লিলি বেগম ও সাধারণ সম্পাদক  রিনা বেগম প্রমুখ।

এছাড়া করোনা ভাইরাস পরিস্থিতিতে লকডাউনের মধ্যে মিছিল, সমাবেশ না করে শারীরিক দূরত্ব রেখে হাতে লেখা ফেস্টুনে নিজেদের দাবি তুলে ধরেন শ্রমিকরা।

কেবল জীবন ধারণের জন্য তাদের এসব দাবি। এরমধ্যে ছিল ‘জাতীয় নিম্নতম মজুরি ঘোষণা করতে হবে’, ৮ ঘণ্ট কাজ চাই, বাঁচার মতো মজুরি চাই’, শ্রম দাসত্বের চির অবসান ঘটানো ছাড়াও মৌলিক অধিকারের দাবি।