ঢাকা ১০:২৮ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

অভিযানেও থেমে নেই অস্বাভাবিক দাম বৃদ্ধি

অর্থনীতি ডেস্কঃ  রোজার বাজারে মোটা দানার মসুর ডালের কেজি ১০০ টাকা ছাড়িয়েছে, যা সাধারণত ৬০-৭০ টাকায় মুদি দোকানগুলোতে পাওয়া যায়।

সপ্তাহখানেক ধরে সব ধরনের আদার দাম বেড়ে প্রতিকেজি ৩৬০ টাকায় পৌঁছেছে, যা সাধারণত ১২০ টাকা থেকে ১৮০ টাকার মধ্যে থাকে।

এদিকে আদার অতিরিক্ত দাম রাখায় বুধবার ঢাকার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে ব্যবসায়ীদের লাখ টাকা জরিমানা করে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা। তবে তাতে কাজের কাজ কিছুই হয়নি। আদার দাম আরও বেড়েছে।

হঠাৎ করে ডাল ও আদা দাম চড়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন ক্রেতারা। অপরদিকে রোজা উপলক্ষে ক্রেতা চাহিদা বেড়ে যাওয়ার তুলনায় পণ্যের সরবরাহ না থাকার কথা বলছেন বিক্রেতারা।

ক্রেতাদের ক্ষোভের মুখে পড়তে হচ্ছে জানিয়ে রামপুরার এক দোকানি বলেন, লকডাউনের কারণে এমনিতেই দোকান খোলা যাচ্ছে না। এর মধ্যে আদার দাম অনেক বেড়ে যাওয়ায় বিক্রি বন্ধ করে দিয়েছি। মসুর ডাল যেগুলো গত সপ্তাহে প্রতি কেজি ৫৫ টাকা বিক্রি করতাম এখন একশ টাকায় বিক্রি করতে হচ্ছে।

শ্যামবাজারের পাইকারি দোকানে আদা ছাড়া অধিকাংশ পণ্যের মূল্য অপরিবর্তিত রয়েছে। দেশি পেঁয়াজ প্রতি কেজি ৪০ টাকা, রসুন প্রতি কেজি ৯০ টাকা থেকে ১২০ টাকা এবং আদা ২৪০ টাকা থেকে ২৬০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। ইদ্রিস আলী নামে এক পাইকারি বিক্রেতা এ তথ্য জানান।

ট্যাগস

আলিশান চাল, নওগাঁ

বিজ্ঞাপন দিন

অভিযানেও থেমে নেই অস্বাভাবিক দাম বৃদ্ধি

আপডেট সময় ১২:৫২:০৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২০

অর্থনীতি ডেস্কঃ  রোজার বাজারে মোটা দানার মসুর ডালের কেজি ১০০ টাকা ছাড়িয়েছে, যা সাধারণত ৬০-৭০ টাকায় মুদি দোকানগুলোতে পাওয়া যায়।

সপ্তাহখানেক ধরে সব ধরনের আদার দাম বেড়ে প্রতিকেজি ৩৬০ টাকায় পৌঁছেছে, যা সাধারণত ১২০ টাকা থেকে ১৮০ টাকার মধ্যে থাকে।

এদিকে আদার অতিরিক্ত দাম রাখায় বুধবার ঢাকার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে ব্যবসায়ীদের লাখ টাকা জরিমানা করে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা। তবে তাতে কাজের কাজ কিছুই হয়নি। আদার দাম আরও বেড়েছে।

হঠাৎ করে ডাল ও আদা দাম চড়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন ক্রেতারা। অপরদিকে রোজা উপলক্ষে ক্রেতা চাহিদা বেড়ে যাওয়ার তুলনায় পণ্যের সরবরাহ না থাকার কথা বলছেন বিক্রেতারা।

ক্রেতাদের ক্ষোভের মুখে পড়তে হচ্ছে জানিয়ে রামপুরার এক দোকানি বলেন, লকডাউনের কারণে এমনিতেই দোকান খোলা যাচ্ছে না। এর মধ্যে আদার দাম অনেক বেড়ে যাওয়ায় বিক্রি বন্ধ করে দিয়েছি। মসুর ডাল যেগুলো গত সপ্তাহে প্রতি কেজি ৫৫ টাকা বিক্রি করতাম এখন একশ টাকায় বিক্রি করতে হচ্ছে।

শ্যামবাজারের পাইকারি দোকানে আদা ছাড়া অধিকাংশ পণ্যের মূল্য অপরিবর্তিত রয়েছে। দেশি পেঁয়াজ প্রতি কেজি ৪০ টাকা, রসুন প্রতি কেজি ৯০ টাকা থেকে ১২০ টাকা এবং আদা ২৪০ টাকা থেকে ২৬০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। ইদ্রিস আলী নামে এক পাইকারি বিক্রেতা এ তথ্য জানান।