ঢাকা ০৪:৪৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ২ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

করোনা গুজবে নারীর লাশ দাফনে গ্রামবাসীর বাধা

করোনা ভাইরাস (ছবি : সংগৃহীত)

স্টাফ রিপোর্টার, নওগাঁরঃ  নওগাঁর পত্নীতলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে করোনা উপসর্গ নিয়ে এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। শনিবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। ঘটনার পর এলাকার লোকজনের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

ওই নারী উপজেলার মাটিন্দর ইউনিয়নের বাজকোলা গ্রামের বাসিন্দা। তিনি দুইদিন আগে ঢাকার আশুলিয়া থেকে গ্রামে স্বামীর বাড়িতে আসেন।

নওগাঁ ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. মনজুর এ. মোর্শেদ বলেন, ঢাকা থেকে ওই নারী গ্রামের বাড়িতে আসেন। শনিবার ভোরে শ্বাসকষ্ট নিয়ে তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন পরিবারের সদস্যরা। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সকাল সাড়ে ৮টার দিকে তিনি মারা যান।

এরপর পরিবারের সদস্যরা মৃতদেহ নিয়ে গ্রামের বাড়িতে দাফনের জন্য প্রস্তুতি নিয়েছিলেন। কিন্তু সেখানে গ্রামের লোকজন করোনায় আক্রান্ত সন্দেহে দাফনে বাধা দেন। পরে উত্তেজনা দেখা দিলে পরিবারের লোকজন মৃতদেহ নিয়ে নিহতের বাবার বাড়ি উপজেলার আকবরপুর ইউপির ব্যাদাপুর গ্রামে নিয়ে যায়। মৃতদেহের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে।

পত্নীতলা উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) লিটন সরকার বলেন, ভোরে অসুস্থতাজনিত কারণে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল ওই নারীকে। ডাক্তারের সঙ্গে কথা বলে জানা যায় ওই নারীর রক্তস্বল্পতা এবং জরায়ুর সমস্যা ছিল। রক্ত স্বল্পতার কারণে শ্বাসকষ্টে তিনি মারা যান। তবে করোনার কোনো লক্ষণ ছিল না। তারপরও করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে।

তিনি বলেন, ঘটনার পর গ্রামের মানুষের মাঝে করোনায় মৃত্যু হয়েছে বলে গুজব ছড়িয়ে পড়ে। এতে গ্রামের মানুষ লাশ দাফনে বাধা দিলে উপজেলার আকবরপুর ইউনিয়নের ব্যাদাপুর গ্রামে নিয়ে বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে দাফন সম্পন্ন হয়।

ট্যাগস

আলিশান চাল, নওগাঁ

বিজ্ঞাপন দিন

করোনা গুজবে নারীর লাশ দাফনে গ্রামবাসীর বাধা

আপডেট সময় ০৫:২২:০১ অপরাহ্ন, শনিবার, ১১ এপ্রিল ২০২০

স্টাফ রিপোর্টার, নওগাঁরঃ  নওগাঁর পত্নীতলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে করোনা উপসর্গ নিয়ে এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। শনিবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। ঘটনার পর এলাকার লোকজনের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

ওই নারী উপজেলার মাটিন্দর ইউনিয়নের বাজকোলা গ্রামের বাসিন্দা। তিনি দুইদিন আগে ঢাকার আশুলিয়া থেকে গ্রামে স্বামীর বাড়িতে আসেন।

নওগাঁ ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. মনজুর এ. মোর্শেদ বলেন, ঢাকা থেকে ওই নারী গ্রামের বাড়িতে আসেন। শনিবার ভোরে শ্বাসকষ্ট নিয়ে তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন পরিবারের সদস্যরা। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সকাল সাড়ে ৮টার দিকে তিনি মারা যান।

এরপর পরিবারের সদস্যরা মৃতদেহ নিয়ে গ্রামের বাড়িতে দাফনের জন্য প্রস্তুতি নিয়েছিলেন। কিন্তু সেখানে গ্রামের লোকজন করোনায় আক্রান্ত সন্দেহে দাফনে বাধা দেন। পরে উত্তেজনা দেখা দিলে পরিবারের লোকজন মৃতদেহ নিয়ে নিহতের বাবার বাড়ি উপজেলার আকবরপুর ইউপির ব্যাদাপুর গ্রামে নিয়ে যায়। মৃতদেহের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে।

পত্নীতলা উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) লিটন সরকার বলেন, ভোরে অসুস্থতাজনিত কারণে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল ওই নারীকে। ডাক্তারের সঙ্গে কথা বলে জানা যায় ওই নারীর রক্তস্বল্পতা এবং জরায়ুর সমস্যা ছিল। রক্ত স্বল্পতার কারণে শ্বাসকষ্টে তিনি মারা যান। তবে করোনার কোনো লক্ষণ ছিল না। তারপরও করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে।

তিনি বলেন, ঘটনার পর গ্রামের মানুষের মাঝে করোনায় মৃত্যু হয়েছে বলে গুজব ছড়িয়ে পড়ে। এতে গ্রামের মানুষ লাশ দাফনে বাধা দিলে উপজেলার আকবরপুর ইউনিয়নের ব্যাদাপুর গ্রামে নিয়ে বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে দাফন সম্পন্ন হয়।