ঢাকা ০৩:৫৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ২ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

২১’র প্রথম প্রহরে শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন খাদ্যমন্ত্রী

খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেছেন, ৩০ লাখ শহীদের রক্তের বিনিময়ে যে স্বাধীনতা অর্জিত হয়েছে এবং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জীবন দিয়ে গেছে সেই স্বাধীনতাকে সমুন্নত রাখার জন্য সকল অপশক্তিকে দমন করে বাংলাদেশকে সুখী সমৃদ্ধশালী গড়ে তুলতে হবে।

মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে রাত ১২টা ১ মিনিটে নওগাঁয় শহরের মুক্তির মোড়ে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন মন্ত্রী।

খাদ্যমন্ত্রী বলেন, ১৯৫২ সালে ২১ ফেব্রুয়ারি সালাম, বরকত, রফিক বুকের তাজা রক্ত ঢেলে দেওয়ার মধ্যে দিয়ে বাংলাদেশের স্বাধিকার আন্দোলন এবং স্বাধীনতা আন্দোলনের বীজ বপন হয়েছিল। সে ধারাবাহিকতায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান দেশকে এগিয়ে নিয়ে ১৯৬৬ সালের ৬ দফা, ১৯৬৯ এর গণঅভ্যুত্থান, ১৯৭০ সালের সাধারণ নির্বাচন সাথে ৭ মার্চের ভাষণ এবং সর্বশেষ মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে ১৬ ডিসেম্বর বিজয় অর্জন হয়েছিল।

সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেন, আজকের এই দিনে আমাদের শপথ নিয়ে বাঙাালি জাতিকে ফিরে যেতে হবে সেই শিকড়ের সন্ধানে। তাহলেই স্বাধীনতার চেতনাকে আমরা বুকে ধারণ করতে পারবো।

এসময় জেলা প্রশাসক খালিদ মেহেদী হাসান, পুলিশ সুপার মুহাম্মদ রাশিদুল হকসহ প্রশাসনের অন্যান্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

পরে একে একে জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, মুক্তিযোদ্ধা ইউনিটসহ সর্বস্তরের মানুষের ঢল নামে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে।

আলিশান চাল, নওগাঁ

বিজ্ঞাপন দিন

২১’র প্রথম প্রহরে শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন খাদ্যমন্ত্রী

আপডেট সময় ১১:২১:০৫ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেছেন, ৩০ লাখ শহীদের রক্তের বিনিময়ে যে স্বাধীনতা অর্জিত হয়েছে এবং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জীবন দিয়ে গেছে সেই স্বাধীনতাকে সমুন্নত রাখার জন্য সকল অপশক্তিকে দমন করে বাংলাদেশকে সুখী সমৃদ্ধশালী গড়ে তুলতে হবে।

মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে রাত ১২টা ১ মিনিটে নওগাঁয় শহরের মুক্তির মোড়ে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন মন্ত্রী।

খাদ্যমন্ত্রী বলেন, ১৯৫২ সালে ২১ ফেব্রুয়ারি সালাম, বরকত, রফিক বুকের তাজা রক্ত ঢেলে দেওয়ার মধ্যে দিয়ে বাংলাদেশের স্বাধিকার আন্দোলন এবং স্বাধীনতা আন্দোলনের বীজ বপন হয়েছিল। সে ধারাবাহিকতায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান দেশকে এগিয়ে নিয়ে ১৯৬৬ সালের ৬ দফা, ১৯৬৯ এর গণঅভ্যুত্থান, ১৯৭০ সালের সাধারণ নির্বাচন সাথে ৭ মার্চের ভাষণ এবং সর্বশেষ মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে ১৬ ডিসেম্বর বিজয় অর্জন হয়েছিল।

সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেন, আজকের এই দিনে আমাদের শপথ নিয়ে বাঙাালি জাতিকে ফিরে যেতে হবে সেই শিকড়ের সন্ধানে। তাহলেই স্বাধীনতার চেতনাকে আমরা বুকে ধারণ করতে পারবো।

এসময় জেলা প্রশাসক খালিদ মেহেদী হাসান, পুলিশ সুপার মুহাম্মদ রাশিদুল হকসহ প্রশাসনের অন্যান্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

পরে একে একে জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, মুক্তিযোদ্ধা ইউনিটসহ সর্বস্তরের মানুষের ঢল নামে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে।