ঢাকা ০২:৫৪ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ২ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সাব রেজিষ্ট্রি অফিস বন্ধ থাকায় নকল নবিস পরিবারের মানবেতর জীবন-যাপন

ডিমলা(নীলফামারী) প্রতিনিধিঃ করোনাভাইরাসের কারনে দেশের বেশির ভাগ পেশার মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়েছে। যাদের বেশির ভাগই নিম্নবিত্ত তথা শ্রমিক শ্রেণীর মানুষ।

কিন্তু সরকারি অফিসে চাকরি করেও মানবেতর জীবনযাপন করছেন নীলফামারীর ডিমলার সাব-রেজিষ্ট্রি অফিসের এক্রট্রা মোহরার বা নকল নবিসরা। করোনাভাইরাসের কারণে সাব-রেজিষ্ট্রি অফিস বন্ধ থাকায় কর্মহীন হয়ে পড়েছেন কাজের বিনিময়ে পারিশ্রমিক পাওয়া ডিমলার ৫২ জন নকল নবিস।

ডিমলা এক্রট্রা-মোহরার (নকল নবিস) অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মোঃ শাহজাহান সিরাজ বলেন, এমনিতেই আমাদের বেশির ভাগ নকল নবিসের ৮-৯ মাসের বেতন বকেয়া রয়েছে। তার ওপর গত মাস থেকে সাব-রেজিস্ট্রি অফিস করোনা ভাইরাসের কারণে বন্ধ থাকায় বেতন না পেয়ে আমরা পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছি। আমরা ছাড়া সরকারী দপ্তরে নিয়োজিত সকলই সরকারের কাছ থেকে বেতন ভাতা পাচ্ছেন।

কিন্তু আমরা কর্মহীন হয়ে পরিবার পরিজন নিয়ে কিভাবে দিনাতিপাত করছি আমাদের সংসার কিভাবে চলছে কেউ তা খোঁজ নেয় না। আমাদের নকল নবিসদের বেশির ভাগ পরিবার খেয়ে না খেয়ে দুর্বিষহ জীবনযাপন করছে। আমরা না পারছি হাত পাততে, না পারছি ন্যায্য পাওনা আদায় করতে।

দেশের এই ক্লান্তিলগ্নে ডিমলাসহ সারা দেশের নকল নবিসদের পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবন যাপনের বিষয়ে শংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের সু-দৃষ্টি কামনা করছি।

ট্যাগস

আলিশান চাল, নওগাঁ

বিজ্ঞাপন দিন

সাব রেজিষ্ট্রি অফিস বন্ধ থাকায় নকল নবিস পরিবারের মানবেতর জীবন-যাপন

আপডেট সময় ১১:৪১:৫৯ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২০

ডিমলা(নীলফামারী) প্রতিনিধিঃ করোনাভাইরাসের কারনে দেশের বেশির ভাগ পেশার মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়েছে। যাদের বেশির ভাগই নিম্নবিত্ত তথা শ্রমিক শ্রেণীর মানুষ।

কিন্তু সরকারি অফিসে চাকরি করেও মানবেতর জীবনযাপন করছেন নীলফামারীর ডিমলার সাব-রেজিষ্ট্রি অফিসের এক্রট্রা মোহরার বা নকল নবিসরা। করোনাভাইরাসের কারণে সাব-রেজিষ্ট্রি অফিস বন্ধ থাকায় কর্মহীন হয়ে পড়েছেন কাজের বিনিময়ে পারিশ্রমিক পাওয়া ডিমলার ৫২ জন নকল নবিস।

ডিমলা এক্রট্রা-মোহরার (নকল নবিস) অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মোঃ শাহজাহান সিরাজ বলেন, এমনিতেই আমাদের বেশির ভাগ নকল নবিসের ৮-৯ মাসের বেতন বকেয়া রয়েছে। তার ওপর গত মাস থেকে সাব-রেজিস্ট্রি অফিস করোনা ভাইরাসের কারণে বন্ধ থাকায় বেতন না পেয়ে আমরা পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছি। আমরা ছাড়া সরকারী দপ্তরে নিয়োজিত সকলই সরকারের কাছ থেকে বেতন ভাতা পাচ্ছেন।

কিন্তু আমরা কর্মহীন হয়ে পরিবার পরিজন নিয়ে কিভাবে দিনাতিপাত করছি আমাদের সংসার কিভাবে চলছে কেউ তা খোঁজ নেয় না। আমাদের নকল নবিসদের বেশির ভাগ পরিবার খেয়ে না খেয়ে দুর্বিষহ জীবনযাপন করছে। আমরা না পারছি হাত পাততে, না পারছি ন্যায্য পাওনা আদায় করতে।

দেশের এই ক্লান্তিলগ্নে ডিমলাসহ সারা দেশের নকল নবিসদের পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবন যাপনের বিষয়ে শংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের সু-দৃষ্টি কামনা করছি।