ঢাকা ০৪:৫৮ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৪ জুলাই ২০২৪, ৮ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ডিজিটাল হাজিরার তথ্য পাঠানোর নির্দেশ

মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের (মাউশি)

শিক্ষা ডেস্কঃ   ঢাকা মহানগরের স্কুল ও কলেজের ডিজিটাল হাজিরা সংক্রান্ত তথ্য চাওয়া হয়েছে। ইতোমধ্যেই যেসকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ডিজিটাল হাজিরা মেশিন স্থাপন করা হয়েছে তাদের আগামী ৯ জুলাইয়ের মধ্যে তথ্য পাঠাতে নির্দেশ দিয়েছে  (মাউশি)।

বুধবার (১০ জুন) এই নির্দেশনা জারি করা হয়েছে। মাউশির মহাপরিচালক অধ্যাপক সৈয়দ গোলাম ফারুক স্বাক্ষরিত ওই নির্দেশনায় বলা হয়, ‘ঢাকায় অবস্থিত-

কোন কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে (স্কুল ও কলেজ) ডিজিটাল হাজিরা বাস্তবায়িত হয়েছে তার তথ্য নির্দিষ্ট ছকে ৯ জুলাইয়ের মধ্যে [email protected] ঠিকানায় পাঠানোর জন্য নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হলো।’

জানা গেছে, ছকে প্রথমে ক্রমিক নং দিয়ে পরে প্রতিষ্ঠানের নাম, ঠিকানা ও ইআইআইএন নম্বর, প্রতিষ্ঠানের ধরণ সরকারি/এমপিওভুক্ত/বেসরকারি এবং নিন্মমাধ্যমিক/মাধ্যমিক/স্কুল অ্যান্ড কলেজ/উচ্চমাধ্যমিক বা কলেজ উল্লেখ করতে হবে।

এরপর বাস্তবায়িত ডিজিটাল হাজিরার ধরণের (শিক্ষক-কর্মকর্তা, কর্মচারী-শিক্ষার্থী-শিক্ষক-কর্মকর্তা, কর্মচারী ও শিক্ষার্থী) বিররণ দিয়ে সর্বশেষ যদি কোনো মন্তব্য থাকে তা লিখে পাঠাতে হবে।

 

ট্যাগস

আলিশান চাল, নওগাঁ

বিজ্ঞাপন দিন

শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ডিজিটাল হাজিরার তথ্য পাঠানোর নির্দেশ

আপডেট সময় ০৭:৩৪:২৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ১০ জুন ২০২০

শিক্ষা ডেস্কঃ   ঢাকা মহানগরের স্কুল ও কলেজের ডিজিটাল হাজিরা সংক্রান্ত তথ্য চাওয়া হয়েছে। ইতোমধ্যেই যেসকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ডিজিটাল হাজিরা মেশিন স্থাপন করা হয়েছে তাদের আগামী ৯ জুলাইয়ের মধ্যে তথ্য পাঠাতে নির্দেশ দিয়েছে  (মাউশি)।

বুধবার (১০ জুন) এই নির্দেশনা জারি করা হয়েছে। মাউশির মহাপরিচালক অধ্যাপক সৈয়দ গোলাম ফারুক স্বাক্ষরিত ওই নির্দেশনায় বলা হয়, ‘ঢাকায় অবস্থিত-

কোন কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে (স্কুল ও কলেজ) ডিজিটাল হাজিরা বাস্তবায়িত হয়েছে তার তথ্য নির্দিষ্ট ছকে ৯ জুলাইয়ের মধ্যে [email protected] ঠিকানায় পাঠানোর জন্য নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হলো।’

জানা গেছে, ছকে প্রথমে ক্রমিক নং দিয়ে পরে প্রতিষ্ঠানের নাম, ঠিকানা ও ইআইআইএন নম্বর, প্রতিষ্ঠানের ধরণ সরকারি/এমপিওভুক্ত/বেসরকারি এবং নিন্মমাধ্যমিক/মাধ্যমিক/স্কুল অ্যান্ড কলেজ/উচ্চমাধ্যমিক বা কলেজ উল্লেখ করতে হবে।

এরপর বাস্তবায়িত ডিজিটাল হাজিরার ধরণের (শিক্ষক-কর্মকর্তা, কর্মচারী-শিক্ষার্থী-শিক্ষক-কর্মকর্তা, কর্মচারী ও শিক্ষার্থী) বিররণ দিয়ে সর্বশেষ যদি কোনো মন্তব্য থাকে তা লিখে পাঠাতে হবে।