ঢাকা ১১:৪৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ৪ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

দুর্গাপুরে চেয়ারম্যান সংবাদ সম্মেলনে দাবী করলেন তার বিরুদ্ধে ষরযন্ত্র করা হচ্ছে

দুর্গাপুর(নেত্রকোনা)প্রতিনিধি : নেত্রকোনার দুর্গাপুরে ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে   বিভিন্ন সংবাদপত্রে প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছেন সদর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান শাহিনু আলম সাজু।

এ নিয়ে সোমবার প্রেসক্লাব মিলনায়তনে ইউনিয়ন চেয়ারম্যান লিখিত বক্তব্যে বলেন, করোনা ভাইরাস মোকাবেলা ও প্রতিরোধ করার লক্ষ্যে কর্মজীবি কর্মহীন মানুষের মাঝে মানবিক খাদ্য সহায়তা হিসেবে জিআর চাল বিতরনের লক্ষ্যে ১.৫০০ মে,টন চাল পাওয়া যায়।
চাল বিতরনের সময় প্রকৃত উপকারভোগীর চাইতে অধিক সংখ্যক লোক জমায়েত হলে ইউনিয়ন পরিষদের সভায় সিদ্ধান্ত মোতাবেক ২০ কেজির পরিবর্তে ১০ কেজি করে ৭৫জনের পরিবর্তে ১৫০জন উপকারভোগীর মাঝে মাষ্টাররোল এর মাধ্যমে চাল বিতরন করা হয়।

দ্বিতীয় ধাপে উপজাতীয়দের জন্য ৫.০০০ মে,টন জি আর চাল বরাদ্দ প্রদান করা হয়। উক্ত চাল বিগত ৮এপ্রিল বিজিবি ও ট্যাগ অফিসারের উপস্থিতিতে বিতরনের সময় ইউপি সদস্যা আছমা আক্তার মোবাইল করে স্থানীয় লোকজন জড়ো করে পরিকল্পিতভাবে আমাকে ও আমার ইউনিয়ন পরিষদের মান সম্মান ক্ষুন্ন করার লক্ষ্যে বিভিন্ন লোকজনের মাধ্যমে মোবাইলে ছবি উঠিয়ে সরকারী নির্দেশনা অমান্য করার বিষয় ফেইসবুকে আপলোড করে।
তার এহেন আচরনের বিষয়টি সাথে সাথেই আমি মোবাইল ফোনে উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে অবহিত করি। আমার বিরুদ্ধে দরপত্র ছাড়াা গাছ কর্তন, জন্ম নিবন্ধন এর টাকা আত্মসাত, ইউনিয়ন পরিষদের দোকান ঘড় ভাড়া আত্মসাৎ এবং আমার স্ত্রীকে সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য মিথ্যা সংবাদ প্রকাশ করা হয়।

ট্যাগস

আলিশান চাল, নওগাঁ

বিজ্ঞাপন দিন

দুর্গাপুরে চেয়ারম্যান সংবাদ সম্মেলনে দাবী করলেন তার বিরুদ্ধে ষরযন্ত্র করা হচ্ছে

আপডেট সময় ০৬:৩৬:০৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ১১ মে ২০২০

দুর্গাপুর(নেত্রকোনা)প্রতিনিধি : নেত্রকোনার দুর্গাপুরে ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে   বিভিন্ন সংবাদপত্রে প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছেন সদর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান শাহিনু আলম সাজু।

এ নিয়ে সোমবার প্রেসক্লাব মিলনায়তনে ইউনিয়ন চেয়ারম্যান লিখিত বক্তব্যে বলেন, করোনা ভাইরাস মোকাবেলা ও প্রতিরোধ করার লক্ষ্যে কর্মজীবি কর্মহীন মানুষের মাঝে মানবিক খাদ্য সহায়তা হিসেবে জিআর চাল বিতরনের লক্ষ্যে ১.৫০০ মে,টন চাল পাওয়া যায়।
চাল বিতরনের সময় প্রকৃত উপকারভোগীর চাইতে অধিক সংখ্যক লোক জমায়েত হলে ইউনিয়ন পরিষদের সভায় সিদ্ধান্ত মোতাবেক ২০ কেজির পরিবর্তে ১০ কেজি করে ৭৫জনের পরিবর্তে ১৫০জন উপকারভোগীর মাঝে মাষ্টাররোল এর মাধ্যমে চাল বিতরন করা হয়।

দ্বিতীয় ধাপে উপজাতীয়দের জন্য ৫.০০০ মে,টন জি আর চাল বরাদ্দ প্রদান করা হয়। উক্ত চাল বিগত ৮এপ্রিল বিজিবি ও ট্যাগ অফিসারের উপস্থিতিতে বিতরনের সময় ইউপি সদস্যা আছমা আক্তার মোবাইল করে স্থানীয় লোকজন জড়ো করে পরিকল্পিতভাবে আমাকে ও আমার ইউনিয়ন পরিষদের মান সম্মান ক্ষুন্ন করার লক্ষ্যে বিভিন্ন লোকজনের মাধ্যমে মোবাইলে ছবি উঠিয়ে সরকারী নির্দেশনা অমান্য করার বিষয় ফেইসবুকে আপলোড করে।
তার এহেন আচরনের বিষয়টি সাথে সাথেই আমি মোবাইল ফোনে উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে অবহিত করি। আমার বিরুদ্ধে দরপত্র ছাড়াা গাছ কর্তন, জন্ম নিবন্ধন এর টাকা আত্মসাত, ইউনিয়ন পরিষদের দোকান ঘড় ভাড়া আত্মসাৎ এবং আমার স্ত্রীকে সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য মিথ্যা সংবাদ প্রকাশ করা হয়।