ঢাকা ০৫:০১ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৪ জুলাই ২০২৪, ৮ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

জামালপুরে ৩৮৪ বস্তা সরকারি চাল উদ্ধার

জব্দকৃত চালের বস্তা

জামালপুর প্রতিনিধিঃ  জামালপুরের ইসলামপুর উপজেলায় তিন চাল ব্যবসায়ীর গুদাম থেকে ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান পরিচালনা করে সরকারি খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির ৩৮৪বস্তা চাল উদ্ধার করেছে। 

সোমবার (২০ এপ্রিল)  দুপুরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান পরিচালনা করে উপজেলার চিনাডুলী ইউনিয়নের গুঠাইল বাজারে নন্দু নামে এক ব্যবসায়ীর গুদামে ১৮৫ বস্তা এবং মোশারফ ও মোয়াজ্জেম নামে দুই চাল ব্যবসায়ী গুদামে মজুদ করা ১৯৯ বস্তা সরকারি খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির হত দরিদ্রদের মাঝে ১০ টাকা কেজি দরের চাল উদ্ধার করা হয় ।

ইসলামপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. মিজানুর রহমান জানান, গুঠাইল বাজারের ব্যবসায়ী নন্দু, মোশারফ ও মোয়াজ্জেমের গুদামে সরকারি চাল মজুদের খবর পেয়ে গতকাল রাতেই তাদের গুদাম সিলগালা করা হয়।

পরে আজ সকাল থেকে তিনটি গুদামে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান চালিয়ে মোট ৩৮৪ বস্তা চাল উদ্ধার করা হয়। প্রতিটি বস্তায় ৫০ কেজি করে মোট ১৯ হাজার ২শ কেজি সরকারি চাল উদ্ধার হয়।

এসময় গুদাম মালিক নন্দু, মোশারফ ও মোয়াজ্জেম কাউকেই পাওয়া যায়নি। তারা পলাতক রয়েছে। এব্যাপারে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

ট্যাগস

আলিশান চাল, নওগাঁ

বিজ্ঞাপন দিন

জামালপুরে ৩৮৪ বস্তা সরকারি চাল উদ্ধার

আপডেট সময় ১২:৪৫:৪৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ এপ্রিল ২০২০

জামালপুর প্রতিনিধিঃ  জামালপুরের ইসলামপুর উপজেলায় তিন চাল ব্যবসায়ীর গুদাম থেকে ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান পরিচালনা করে সরকারি খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির ৩৮৪বস্তা চাল উদ্ধার করেছে। 

সোমবার (২০ এপ্রিল)  দুপুরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান পরিচালনা করে উপজেলার চিনাডুলী ইউনিয়নের গুঠাইল বাজারে নন্দু নামে এক ব্যবসায়ীর গুদামে ১৮৫ বস্তা এবং মোশারফ ও মোয়াজ্জেম নামে দুই চাল ব্যবসায়ী গুদামে মজুদ করা ১৯৯ বস্তা সরকারি খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির হত দরিদ্রদের মাঝে ১০ টাকা কেজি দরের চাল উদ্ধার করা হয় ।

ইসলামপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. মিজানুর রহমান জানান, গুঠাইল বাজারের ব্যবসায়ী নন্দু, মোশারফ ও মোয়াজ্জেমের গুদামে সরকারি চাল মজুদের খবর পেয়ে গতকাল রাতেই তাদের গুদাম সিলগালা করা হয়।

পরে আজ সকাল থেকে তিনটি গুদামে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান চালিয়ে মোট ৩৮৪ বস্তা চাল উদ্ধার করা হয়। প্রতিটি বস্তায় ৫০ কেজি করে মোট ১৯ হাজার ২শ কেজি সরকারি চাল উদ্ধার হয়।

এসময় গুদাম মালিক নন্দু, মোশারফ ও মোয়াজ্জেম কাউকেই পাওয়া যায়নি। তারা পলাতক রয়েছে। এব্যাপারে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।