ঢাকা ১১:৫৩ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

যশোরে মূল্য তালিকা প্রদর্শন না করায় পাঁচ প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা

যশোর প্রতিনিধি: করোনা ইস্যুকে কাজে লাগিয়ে বেশি মূল্যে পণ্য বিক্রি ও মূল্য তালিকা প্রদর্শন না করায় যশোরের পাঁচটি প্রতিষ্ঠানকে ২১ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর।

আজ দুপুরে শহরের চৌরাস্তা, বড়বাজার, এইচএমএম রোড এলাকায় বাজার তদারকি অভিযান পরিচালনাকালে এ জরিমানা করা হয়।

অভিযানটি পরিচালনা করেন ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর যশোরের সহকারী পরিচালক ওয়ালিদ বিন হাবিব। তিনি জানান, মূল্য তালিকা প্রদর্শন না করা ও পেঁয়াজের ক্রয় রশিদের সাথে বিক্রয়ের তথ্য যাচাই করে গড়মিল পাওয়ায় সুমা এন্টারপ্রাইজকে আট হাজার টাকা, সুমন সাহা স্টোরকে দুই হাজার টাকা, মেসার্স আব্দুল গণি স্টোরকে তিন হাজার টাকা, হালিম স্টোরকে পাঁচ হাজার টাকা ও জামাল স্টোরকে তিন হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

পাঁচ প্রতিষ্ঠান থেকে মোট ২১ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে। অভিযান চলাকালে দোকান মালিকদেরকে মূল্য তালিকা দৃশ্যমান স্থানে সর্বদা প্রদর্শন করার নির্দেশনা দেয়া হয়।

পরে উপস্থিত জনসাধারণের মাঝে ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ আইন, ২০০৯-এর লিফলেট বিতরণ করা হয় এবং সকলকে ভোক্তা-অধিকার বিরোধী কার্যাবলী হতে বিরত থাকার অনুরোধ করা হয়।

তদারকি অভিযানে আরও উপস্থিত ছিলেন কনজুমারস এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ক্যাব) যশোরের সদস্য আব্দুর রকিব সরদার ও কোতয়ালি থানা ও সদর পুলিশ ফাঁড়ির একটি টিম।

ট্যাগস

আলিশান চাল, নওগাঁ

বিজ্ঞাপন দিন

যশোরে মূল্য তালিকা প্রদর্শন না করায় পাঁচ প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা

আপডেট সময় ০৫:৪৪:১০ অপরাহ্ন, শনিবার, ২১ মার্চ ২০২০

যশোর প্রতিনিধি: করোনা ইস্যুকে কাজে লাগিয়ে বেশি মূল্যে পণ্য বিক্রি ও মূল্য তালিকা প্রদর্শন না করায় যশোরের পাঁচটি প্রতিষ্ঠানকে ২১ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর।

আজ দুপুরে শহরের চৌরাস্তা, বড়বাজার, এইচএমএম রোড এলাকায় বাজার তদারকি অভিযান পরিচালনাকালে এ জরিমানা করা হয়।

অভিযানটি পরিচালনা করেন ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর যশোরের সহকারী পরিচালক ওয়ালিদ বিন হাবিব। তিনি জানান, মূল্য তালিকা প্রদর্শন না করা ও পেঁয়াজের ক্রয় রশিদের সাথে বিক্রয়ের তথ্য যাচাই করে গড়মিল পাওয়ায় সুমা এন্টারপ্রাইজকে আট হাজার টাকা, সুমন সাহা স্টোরকে দুই হাজার টাকা, মেসার্স আব্দুল গণি স্টোরকে তিন হাজার টাকা, হালিম স্টোরকে পাঁচ হাজার টাকা ও জামাল স্টোরকে তিন হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

পাঁচ প্রতিষ্ঠান থেকে মোট ২১ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে। অভিযান চলাকালে দোকান মালিকদেরকে মূল্য তালিকা দৃশ্যমান স্থানে সর্বদা প্রদর্শন করার নির্দেশনা দেয়া হয়।

পরে উপস্থিত জনসাধারণের মাঝে ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ আইন, ২০০৯-এর লিফলেট বিতরণ করা হয় এবং সকলকে ভোক্তা-অধিকার বিরোধী কার্যাবলী হতে বিরত থাকার অনুরোধ করা হয়।

তদারকি অভিযানে আরও উপস্থিত ছিলেন কনজুমারস এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ক্যাব) যশোরের সদস্য আব্দুর রকিব সরদার ও কোতয়ালি থানা ও সদর পুলিশ ফাঁড়ির একটি টিম।