ঢাকা ০২:৫২ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

২১ ঘণ্টার চেষ্টায় নিভলো তুলার গোডাউনের আগুন

প্রায় ২১ ঘণ্টার চেষ্টায় নিভেছে চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে তুলার গোডাউনের আগুন। রোববার (১২ মার্চ) সকাল ৭টায় আগুন নির্বাপিত হয়।

বিষয়টি জাগো নিউজকে নিশ্চিত করেছেন জেলা প্রশাসনের নেজারত ডেপুটি কালেক্টর (এনডিসি) মো. তৌহিদুল ইসলাম।

তিনি বলেন, আগুন নিভে গেছে। তবে এখনো কিছু ধোঁয়া উঠছে। ফায়ার সার্ভিসের পক্ষ থেকে এখনো আগুন পুরোপুরি নিভে যাওয়ার ব্যাপারে ঘোষণা দেওয়া হয়নি। ফায়ার সার্ভিস, সেনাবাহিনী, নৌবাহিনী ও বিমানবাহিনীর মোট ১৮টি ইউনিট অগ্নিনির্বাপণে কাজ করেছে।

শনিবার (১১ মার্চ) সকাল সাড়ে ১০টায় উপজেলার ছোট কুমিরা এলাকার নেমসন কনটেইনার ডিপোর পাশে অবস্থিত ইউনিটেক্স গ্রুপের ওই তুলার গুদামে অগ্নিকাণ্ড ঘটে।

সেনাবাহিনীর ইউনিট কমান্ডার লেফটেন্যান্ট কর্নেল মাহমুদের বক্তব্য উদ্ধৃত করে এনডিসি তৌহিদুল ইসলাম বলেন, ইউনিটেক্সের গোডাউনে তুলার পরিমাণে বেশি (২৭০০ টন) হওয়ায় গোডাউনের এক অংশে আগুন নির্বাপণের পর সেটা স্তূপ হয়ে কিছুক্ষণ পর আবার স্তূপের নিচ থেকে আগুন আরেক অংশে ছড়ায়।

আগুন নিয়ন্ত্রণের এ চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় প্রায় ১০ একর আয়তনের গোডাউনের চারদিকের দেয়াল বুলডোজার দিয়ে ভেঙে চতুর্দিক থেকে ফায়ার টেন্ডার (পানি ছড়ানোর মেশিন) প্রবেশ করানো হয়।

 

ট্যাগস

আলিশান চাল, নওগাঁ

বিজ্ঞাপন দিন

২১ ঘণ্টার চেষ্টায় নিভলো তুলার গোডাউনের আগুন

আপডেট সময় ১০:৫০:৫১ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১২ মার্চ ২০২৩

প্রায় ২১ ঘণ্টার চেষ্টায় নিভেছে চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে তুলার গোডাউনের আগুন। রোববার (১২ মার্চ) সকাল ৭টায় আগুন নির্বাপিত হয়।

বিষয়টি জাগো নিউজকে নিশ্চিত করেছেন জেলা প্রশাসনের নেজারত ডেপুটি কালেক্টর (এনডিসি) মো. তৌহিদুল ইসলাম।

তিনি বলেন, আগুন নিভে গেছে। তবে এখনো কিছু ধোঁয়া উঠছে। ফায়ার সার্ভিসের পক্ষ থেকে এখনো আগুন পুরোপুরি নিভে যাওয়ার ব্যাপারে ঘোষণা দেওয়া হয়নি। ফায়ার সার্ভিস, সেনাবাহিনী, নৌবাহিনী ও বিমানবাহিনীর মোট ১৮টি ইউনিট অগ্নিনির্বাপণে কাজ করেছে।

শনিবার (১১ মার্চ) সকাল সাড়ে ১০টায় উপজেলার ছোট কুমিরা এলাকার নেমসন কনটেইনার ডিপোর পাশে অবস্থিত ইউনিটেক্স গ্রুপের ওই তুলার গুদামে অগ্নিকাণ্ড ঘটে।

সেনাবাহিনীর ইউনিট কমান্ডার লেফটেন্যান্ট কর্নেল মাহমুদের বক্তব্য উদ্ধৃত করে এনডিসি তৌহিদুল ইসলাম বলেন, ইউনিটেক্সের গোডাউনে তুলার পরিমাণে বেশি (২৭০০ টন) হওয়ায় গোডাউনের এক অংশে আগুন নির্বাপণের পর সেটা স্তূপ হয়ে কিছুক্ষণ পর আবার স্তূপের নিচ থেকে আগুন আরেক অংশে ছড়ায়।

আগুন নিয়ন্ত্রণের এ চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় প্রায় ১০ একর আয়তনের গোডাউনের চারদিকের দেয়াল বুলডোজার দিয়ে ভেঙে চতুর্দিক থেকে ফায়ার টেন্ডার (পানি ছড়ানোর মেশিন) প্রবেশ করানো হয়।