ঢাকা ০৪:৫৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৪ জুলাই ২০২৪, ৮ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

তুষার ঝড়ে বিপর্যস্ত যুক্তরাষ্ট্র, ১৭ জনের মৃত্যু

যুক্তরাষ্ট্রের ৮ অঙ্গরাজ্যে আবহাওয়ার কারণে কমপক্ষে ১৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। তুষারপাত, প্রচণ্ড বাতাস আর হিমশীতল তাপমাত্রার কারণে সেখানকার আবহাওয়া প্রতিকূল। 

ভয়াবহ তুষারঝড়ের কারণে দেশটির ১৭ লাখের বেশি মানুষ বিদ্যুৎবিহীন হয়ে পড়েছে। সড়কগুলোতে বরফ জমে থাকায় খ্রিষ্টান সম্প্রদায়ের প্রধান ধর্মীয় উৎসব বড়দিন উদ্‌যাপনে প্রভাব পড়ছে।

নিউইয়র্ক অঙ্গরাজ্যের গভর্নর ক্যাথি হোচুল ইরি কাউন্টি ও বাফেলো শহরে ন্যাশনাল গার্ড সদস্যদের মোতায়েন করেছেন। কর্তৃপক্ষ বলছে, প্রচণ্ড তুষারঝড়ের কারণে এসব এলাকার জরুরি সেবাব্যবস্থাও ভেঙে পড়েছে।

বরফ জমে থাকায় এবং তুষারপাত ও মেঘাচ্ছন্ন আবহাওয়ার কারণে যুক্তরাষ্ট্রের ব্যস্ততম কয়েকটি সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে।

গ্রেট লেক অঞ্চলের কানাডা সীমান্তবর্তী একটি এলাকার এক দম্পতি এএফপিকে বলেন, রাস্তাগুলো দিয়ে একেবারেই চলাচল করা যাচ্ছে না। বড়দিন উপলক্ষে পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে দেখা করতে গাড়ি চালিয়ে ১০ মিনিটের পথও যেতে পারছেন না তাঁরা।

আবহাওয়া কর্মকর্তারা আভাস দিয়েছেন, যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যাঞ্চল ও পূর্বাঞ্চলে সপ্তাহজুড়ে আবহাওয়ার এই ভয়াবহ পরিস্থিতি অব্যাহত থাকতে পারে। আগামী সপ্তাহে তাপমাত্রা স্বাভাবিক অবস্থায় ফেরার আভাস দেওয়া হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় আবহাওয়া বিভাগ বলছে, পরিস্থিতি আরও মারাত্মক আকার ধারণ করতে পারে। তুষারঝড়কবলিত এলাকাগুলোর বাসিন্দাদের বাড়িতে অবস্থানের পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। গত শুক্রবার আবহাওয়া বিভাগ বলেছিল, তাপমাত্রা মাইনাস ৪৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসে নেমে গেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের গ্রেট প্লেনস অঞ্চলভুক্ত বেশ কয়েকটি অঙ্গরাজ্যের পরিবহন বিভাগ বলেছে, সেখানকার সড়কগুলো তুষারে ঢাকা পড়েছে। সেখানকার বাসিন্দাদের বাড়িতে অবস্থানের পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

চালকদের গাড়ি নিয়ে সড়কে বের না হওয়ার জন্য আহ্বান জানানো হয়েছে।

সূত্র: এএফপির

ট্যাগস

আলিশান চাল, নওগাঁ

বিজ্ঞাপন দিন

তুষার ঝড়ে বিপর্যস্ত যুক্তরাষ্ট্র, ১৭ জনের মৃত্যু

আপডেট সময় ০৬:০০:৩২ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৫ ডিসেম্বর ২০২২

যুক্তরাষ্ট্রের ৮ অঙ্গরাজ্যে আবহাওয়ার কারণে কমপক্ষে ১৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। তুষারপাত, প্রচণ্ড বাতাস আর হিমশীতল তাপমাত্রার কারণে সেখানকার আবহাওয়া প্রতিকূল। 

ভয়াবহ তুষারঝড়ের কারণে দেশটির ১৭ লাখের বেশি মানুষ বিদ্যুৎবিহীন হয়ে পড়েছে। সড়কগুলোতে বরফ জমে থাকায় খ্রিষ্টান সম্প্রদায়ের প্রধান ধর্মীয় উৎসব বড়দিন উদ্‌যাপনে প্রভাব পড়ছে।

নিউইয়র্ক অঙ্গরাজ্যের গভর্নর ক্যাথি হোচুল ইরি কাউন্টি ও বাফেলো শহরে ন্যাশনাল গার্ড সদস্যদের মোতায়েন করেছেন। কর্তৃপক্ষ বলছে, প্রচণ্ড তুষারঝড়ের কারণে এসব এলাকার জরুরি সেবাব্যবস্থাও ভেঙে পড়েছে।

বরফ জমে থাকায় এবং তুষারপাত ও মেঘাচ্ছন্ন আবহাওয়ার কারণে যুক্তরাষ্ট্রের ব্যস্ততম কয়েকটি সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে।

গ্রেট লেক অঞ্চলের কানাডা সীমান্তবর্তী একটি এলাকার এক দম্পতি এএফপিকে বলেন, রাস্তাগুলো দিয়ে একেবারেই চলাচল করা যাচ্ছে না। বড়দিন উপলক্ষে পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে দেখা করতে গাড়ি চালিয়ে ১০ মিনিটের পথও যেতে পারছেন না তাঁরা।

আবহাওয়া কর্মকর্তারা আভাস দিয়েছেন, যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যাঞ্চল ও পূর্বাঞ্চলে সপ্তাহজুড়ে আবহাওয়ার এই ভয়াবহ পরিস্থিতি অব্যাহত থাকতে পারে। আগামী সপ্তাহে তাপমাত্রা স্বাভাবিক অবস্থায় ফেরার আভাস দেওয়া হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় আবহাওয়া বিভাগ বলছে, পরিস্থিতি আরও মারাত্মক আকার ধারণ করতে পারে। তুষারঝড়কবলিত এলাকাগুলোর বাসিন্দাদের বাড়িতে অবস্থানের পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। গত শুক্রবার আবহাওয়া বিভাগ বলেছিল, তাপমাত্রা মাইনাস ৪৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসে নেমে গেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের গ্রেট প্লেনস অঞ্চলভুক্ত বেশ কয়েকটি অঙ্গরাজ্যের পরিবহন বিভাগ বলেছে, সেখানকার সড়কগুলো তুষারে ঢাকা পড়েছে। সেখানকার বাসিন্দাদের বাড়িতে অবস্থানের পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

চালকদের গাড়ি নিয়ে সড়কে বের না হওয়ার জন্য আহ্বান জানানো হয়েছে।

সূত্র: এএফপির