ঢাকা ০৪:০৫ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ২ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

করোনার বিরুদ্ধে লড়তে আমাজনের আদিবাসীদের নিজস্ব তহবিল গঠন

আমাজন

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে নিজেরাই তহবিল গঠন করল আমাজনের আদিবাসীরা। এ তহবিলে অর্থায়নে আমাজন অরণ্যজুড়ে থাকা ৯ দেশের সরকারের কাছে সহযোগিতা চেয়েছেন তারা।

র্যাপ্ত স্বাস্থ্যসেবা না থাকায় আমাজন অরণ্যের ৩০ লাখ মানুষ করোনার ঝুঁকিতে রয়েছে। তারা বলছে, সরকারগুলো যদি আদিবাসীদের করোনা থেকে সুরক্ষা দিতে চায় তবে অবশ্যই খাদ্য, ওষুধ, মাস্ক ও অন্যান্য করোনা সরঞ্জামের ব্যবস্থা করতে হবে, অর্থ দিতে হবে।

আদিবাসীদের সংগঠন কোঅর্ডিনেটিং বডি অব ইনডিজিনিয়াস পিপলস অব দ্যা আমাজন বেসিন (সিওআইসিএ) জানায়, আমাজন জরুরি তহবিলের লক্ষ্য আগামী দুই সপ্তাহে ৩০ লাখ মার্কিন ডলার উত্তোলন এবং দুইমাসের মধ্যে ৫০ লাখ মার্কিন ডলার।

সিওআইসিএ এর সমন্বয়ক জোসে গ্রেগোরিও ডিয়াজ মিরাবাল বলেন, ‘আমরা সরকারগুলোর অপেক্ষায় বসে থাকতে পারি না। আমরা ভয়াবহ বিপদে আছি।

করোনায় ইতিমধ্যে আমাজন অরণ্যের ৬০০ আদিবাসী উপজাতির ১৮০ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এমনকি একমাসে ৩৩ জন মারা গেছেন।’

আদিবাসীদের এ তহবিলের প্রধান পৃষ্ঠপোষক রেইনফরেস্ট ফাউন্ডেশন ইউএস। প্রতিষ্ঠানটির নির্বাহী পরিচালক সুজানে পেলেটিয়ার বলেন, ‘আদিবাসীরা হচ্ছে অরণ্যের রক্ষক।

পৃথিবীর প্রাণ রক্ষার জন্য তাদের বেঁচে থাকা জরুরি। প্রতিষ্ঠানটি সরকারগুলোসহ বিশ্বের শিল্পী, খেলোয়াড়সহ বিভিন্ন পর্যায়ের তারকাদের কাছেও আহবান জানিয়েছে এ তহবিলে অর্থ দেয়ার জন্য। সূত্র: সিডনি মার্নিং হেরাল্ড

 

ট্যাগস

আলিশান চাল, নওগাঁ

বিজ্ঞাপন দিন

করোনার বিরুদ্ধে লড়তে আমাজনের আদিবাসীদের নিজস্ব তহবিল গঠন

আপডেট সময় ০৩:৩২:৪৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৭ মে ২০২০

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে নিজেরাই তহবিল গঠন করল আমাজনের আদিবাসীরা। এ তহবিলে অর্থায়নে আমাজন অরণ্যজুড়ে থাকা ৯ দেশের সরকারের কাছে সহযোগিতা চেয়েছেন তারা।

র্যাপ্ত স্বাস্থ্যসেবা না থাকায় আমাজন অরণ্যের ৩০ লাখ মানুষ করোনার ঝুঁকিতে রয়েছে। তারা বলছে, সরকারগুলো যদি আদিবাসীদের করোনা থেকে সুরক্ষা দিতে চায় তবে অবশ্যই খাদ্য, ওষুধ, মাস্ক ও অন্যান্য করোনা সরঞ্জামের ব্যবস্থা করতে হবে, অর্থ দিতে হবে।

আদিবাসীদের সংগঠন কোঅর্ডিনেটিং বডি অব ইনডিজিনিয়াস পিপলস অব দ্যা আমাজন বেসিন (সিওআইসিএ) জানায়, আমাজন জরুরি তহবিলের লক্ষ্য আগামী দুই সপ্তাহে ৩০ লাখ মার্কিন ডলার উত্তোলন এবং দুইমাসের মধ্যে ৫০ লাখ মার্কিন ডলার।

সিওআইসিএ এর সমন্বয়ক জোসে গ্রেগোরিও ডিয়াজ মিরাবাল বলেন, ‘আমরা সরকারগুলোর অপেক্ষায় বসে থাকতে পারি না। আমরা ভয়াবহ বিপদে আছি।

করোনায় ইতিমধ্যে আমাজন অরণ্যের ৬০০ আদিবাসী উপজাতির ১৮০ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এমনকি একমাসে ৩৩ জন মারা গেছেন।’

আদিবাসীদের এ তহবিলের প্রধান পৃষ্ঠপোষক রেইনফরেস্ট ফাউন্ডেশন ইউএস। প্রতিষ্ঠানটির নির্বাহী পরিচালক সুজানে পেলেটিয়ার বলেন, ‘আদিবাসীরা হচ্ছে অরণ্যের রক্ষক।

পৃথিবীর প্রাণ রক্ষার জন্য তাদের বেঁচে থাকা জরুরি। প্রতিষ্ঠানটি সরকারগুলোসহ বিশ্বের শিল্পী, খেলোয়াড়সহ বিভিন্ন পর্যায়ের তারকাদের কাছেও আহবান জানিয়েছে এ তহবিলে অর্থ দেয়ার জন্য। সূত্র: সিডনি মার্নিং হেরাল্ড