ঢাকা ০১:০১ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

করোনাকে হারিয়ে সুস্থ জীবনে জুভেন্টাসের দুই ফুটবলার

জুভেন্টাসের দুই খেলোয়াড় ড্যানিয়েল রুগানি এবং ব্লেইস মাতুইদি

 ক্রীড়া ডেস্কঃ   গত মাসের শেষদিকে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন ইতালিয়ান ফুটবল ক্লাব জুভেন্টাসের দুই খেলোয়াড় ড্যানিয়েল রুগানি এবং ব্লেইস মাতুইদি। তবে ভাল খবর হলো, ইতালির মৃত্যুপুরীর মাঝে থেকেও কোন নেতিবাচক খবরে পরিণত হতে হয়নি তাদের।

বুধবার আনুষ্ঠানিক এক বিবৃতির মাধ্যমে জুভেন্টাসের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, মাতুইদি এবং রুগানি- দুজনই এখন করোনাভাইরাস থেকে মুক্ত। অর্থাৎ করোনার বিপক্ষে যুদ্ধে জয়ী হয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে পেরেছেন তারা।

বিবৃতিতে লেখা হয়েছে, ‘প্রোটোকল মোতাবেক করোনাভাইরাসের দুইটি পরীক্ষা করা হয়েছে ড্যানিয়েল রুগানি ও ব্লেইস মাতুইদির। তাদের এ পরীক্ষার ফল এসেছে নেগেটিভ।
অর্থাৎ এখন আর করোনায় আক্রান্ত নন তারা। এখন আর তাদের বাধ্যতামূলক হোম আইসোলেশনে থাকতে হবে না।’

উল্লেখ্য, ইতালিতে এখনও পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ৬৫ হাজারের বেশি মানুষ। প্রাণঘাতী এ ভাইরাসের কাছে হার মেনেছেন অন্তত ২১ হাজার ৬৪৫ জন। সারাবিশ্বে মৃতের সংখ্যা ১ লাখ ৩৪ হাজার ছাড়িয়ে গেছে।

ট্যাগস

আলিশান চাল, নওগাঁ

বিজ্ঞাপন দিন

করোনাকে হারিয়ে সুস্থ জীবনে জুভেন্টাসের দুই ফুটবলার

আপডেট সময় ১২:০০:৫৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৬ এপ্রিল ২০২০

 ক্রীড়া ডেস্কঃ   গত মাসের শেষদিকে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন ইতালিয়ান ফুটবল ক্লাব জুভেন্টাসের দুই খেলোয়াড় ড্যানিয়েল রুগানি এবং ব্লেইস মাতুইদি। তবে ভাল খবর হলো, ইতালির মৃত্যুপুরীর মাঝে থেকেও কোন নেতিবাচক খবরে পরিণত হতে হয়নি তাদের।

বুধবার আনুষ্ঠানিক এক বিবৃতির মাধ্যমে জুভেন্টাসের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, মাতুইদি এবং রুগানি- দুজনই এখন করোনাভাইরাস থেকে মুক্ত। অর্থাৎ করোনার বিপক্ষে যুদ্ধে জয়ী হয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে পেরেছেন তারা।

বিবৃতিতে লেখা হয়েছে, ‘প্রোটোকল মোতাবেক করোনাভাইরাসের দুইটি পরীক্ষা করা হয়েছে ড্যানিয়েল রুগানি ও ব্লেইস মাতুইদির। তাদের এ পরীক্ষার ফল এসেছে নেগেটিভ।
অর্থাৎ এখন আর করোনায় আক্রান্ত নন তারা। এখন আর তাদের বাধ্যতামূলক হোম আইসোলেশনে থাকতে হবে না।’

উল্লেখ্য, ইতালিতে এখনও পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ৬৫ হাজারের বেশি মানুষ। প্রাণঘাতী এ ভাইরাসের কাছে হার মেনেছেন অন্তত ২১ হাজার ৬৪৫ জন। সারাবিশ্বে মৃতের সংখ্যা ১ লাখ ৩৪ হাজার ছাড়িয়ে গেছে।