ঢাকা ১০:২৯ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

করোনায় মারা গেলেন বাংলাদেশ ব্যাংকের এক কর্মকর্তা

বাংলাদেশ ব্যাংক

স্টাফ রিপোর্টারঃ  করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের যুগ্ম-পরিচালক শেখ ফরিদ উদ্দিন সোয়াদের মৃত্যু হয়েছে। সোয়াদ বাংলাদেশ ব্যাংক ট্রেনিং একাডেমিতে কর্মরত ছিলেন।

২০১০ ব্যাচে বাংলাদেশ ব্যাংকে সহকারী পরিচালক হিসেবে যোগদান করেন তিনি।  সোমবার (২২ জুন) সকালে রাজধানীর হলি ফ্যামিলি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয় বলে পারিবারিক সূত্র নিশ্চিত করেছে।

পারিবারিক সূত্র জানায়, গত ১১ জুন করোনা উপসর্গ দেখা দেয় সোয়াদের। এরপর শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে ১৪ জুন তাকে হলি ফ্যামিলি হাসপাতালের আইসিইউতে নেওয়া হয়। ১৮ জুন তাকে প্লাজমাও দেওয়া হয়েছিল।

এদিকে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র সিরাজুল ইসলাম সোয়াদের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করলেও তিনি কীভাবে মারা গেছেন তা নিশ্চিত করেননি।

সিরাজুল ইসলাম বলেন, আমাদের কর্মকর্তাদের করোনা চিকিৎসার জন্য আনোয়ার খান মর্ডান হাসপাতালের সঙ্গে চুক্তি হয়েছে। সোয়াদকে কেন হলি ফ্যামিলি হাসপাতালে নেওয়া হলো বিষয়টি বুঝতে পারছি না।

এ প্রসঙ্গে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কর্মকর্তারা জানান, গত ১৫ জুন এখানকার কর্মকর্তাদের চিকিৎসার জন্য আনোয়ার খান মর্ডান হাসপাতালের সঙ্গে চুক্তি করে বাংলাদেশ ব্যাংক।

সোয়াদ তার আগেই করোনা ভাইরাস আক্রান্ত হন। সে সময় কোথাও আইসিইউ পাওয়া না যাওয়ায়, তাকে দ্রুত হলি ফ্যামিলি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। মরহুম শেখ ফরিদ উদ্দিন সোয়াদের পরিবারে স্ত্রী ও এক ছেলে রয়েছে।

ট্যাগস

আলিশান চাল, নওগাঁ

বিজ্ঞাপন দিন

করোনায় মারা গেলেন বাংলাদেশ ব্যাংকের এক কর্মকর্তা

আপডেট সময় ১২:০৮:৪৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ২২ জুন ২০২০

স্টাফ রিপোর্টারঃ  করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের যুগ্ম-পরিচালক শেখ ফরিদ উদ্দিন সোয়াদের মৃত্যু হয়েছে। সোয়াদ বাংলাদেশ ব্যাংক ট্রেনিং একাডেমিতে কর্মরত ছিলেন।

২০১০ ব্যাচে বাংলাদেশ ব্যাংকে সহকারী পরিচালক হিসেবে যোগদান করেন তিনি।  সোমবার (২২ জুন) সকালে রাজধানীর হলি ফ্যামিলি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয় বলে পারিবারিক সূত্র নিশ্চিত করেছে।

পারিবারিক সূত্র জানায়, গত ১১ জুন করোনা উপসর্গ দেখা দেয় সোয়াদের। এরপর শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে ১৪ জুন তাকে হলি ফ্যামিলি হাসপাতালের আইসিইউতে নেওয়া হয়। ১৮ জুন তাকে প্লাজমাও দেওয়া হয়েছিল।

এদিকে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র সিরাজুল ইসলাম সোয়াদের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করলেও তিনি কীভাবে মারা গেছেন তা নিশ্চিত করেননি।

সিরাজুল ইসলাম বলেন, আমাদের কর্মকর্তাদের করোনা চিকিৎসার জন্য আনোয়ার খান মর্ডান হাসপাতালের সঙ্গে চুক্তি হয়েছে। সোয়াদকে কেন হলি ফ্যামিলি হাসপাতালে নেওয়া হলো বিষয়টি বুঝতে পারছি না।

এ প্রসঙ্গে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কর্মকর্তারা জানান, গত ১৫ জুন এখানকার কর্মকর্তাদের চিকিৎসার জন্য আনোয়ার খান মর্ডান হাসপাতালের সঙ্গে চুক্তি করে বাংলাদেশ ব্যাংক।

সোয়াদ তার আগেই করোনা ভাইরাস আক্রান্ত হন। সে সময় কোথাও আইসিইউ পাওয়া না যাওয়ায়, তাকে দ্রুত হলি ফ্যামিলি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। মরহুম শেখ ফরিদ উদ্দিন সোয়াদের পরিবারে স্ত্রী ও এক ছেলে রয়েছে।