ঢাকা ১২:৫৪ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪, ৪ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রাত ১২টা থেকে ফেনী ‘লকডাউন’

ফেনী প্রতিনিধিঃ  করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে ফেনীকে লকডাউন করার ঘোষণা দিয়েছেন জেলা প্রশাসক মো. ওয়াহিদুজ্জামান। বুধবার (২৫ মার্চ) দিবাগত রাত ১২টা থেকে পরবর্তী ঘোষণা না দেয়া পর্যন্ত এ সিদ্ধান্ত বলবৎ থাকবে ।

লকডাউন অবস্থায় প্রয়োজনীয় নির্দেশনা মেনে চলতে ফেনীর গণমানুষের প্রতি বিশেষভাবে অনুরোধ জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক।

জনস্বার্থে এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, এ সময় কোনোভাবেই একাধিক ব্যক্তির সমাগম মেনে নেয়া হবে না। সর্বক্ষেত্রে সকলকে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। আইন অমান্যকারীদের বিষয়ে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী কঠোরতা প্রয়োগ করবে।

জেলা প্রশাসক মো. ওয়াহিদুজ্জামান বলেন, করোনাভাইরাস সংক্রমণে আমরা স্টেজ-২ তে আছি। আমরা যদি সামাজিক দূরত্ব বজায় না রাখি তবে আমাদের জনসংখ্যার ঘনত্বের কারণে করোনা খারাপ সংবাদ বয়ে আনতে পারে।

জেলা প্রশাসক জানান, লকডাউন অবস্থায় শুধুমাত্র ওষুধের দোকান খোলা রাখা যাবে। সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত ব্যাংকিং লেনদেন চলবে। সকাল ৮টা থেকে দুপুর পর্যন্ত কাঁচাবাজার ও নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দোকান খোলা রাখা যাবে।

এদিকে বুধবার বিকেল থেকে প্রশাসনের সহায়তায় কাজ শুরু করবে সেনাবাহিনী। শহরের জিরো পয়েন্ট সংলগ্ন টিচার্স ট্রেনিং ইনস্টিটিউটের অস্থায়ী ক্যাম্প থেকে তারা তাদের দায়িত্ব পালন করবেন।

ট্যাগস

আলিশান চাল, নওগাঁ

বিজ্ঞাপন দিন

রাত ১২টা থেকে ফেনী ‘লকডাউন’

আপডেট সময় ০৪:৫৬:৫৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৫ মার্চ ২০২০

ফেনী প্রতিনিধিঃ  করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে ফেনীকে লকডাউন করার ঘোষণা দিয়েছেন জেলা প্রশাসক মো. ওয়াহিদুজ্জামান। বুধবার (২৫ মার্চ) দিবাগত রাত ১২টা থেকে পরবর্তী ঘোষণা না দেয়া পর্যন্ত এ সিদ্ধান্ত বলবৎ থাকবে ।

লকডাউন অবস্থায় প্রয়োজনীয় নির্দেশনা মেনে চলতে ফেনীর গণমানুষের প্রতি বিশেষভাবে অনুরোধ জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক।

জনস্বার্থে এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, এ সময় কোনোভাবেই একাধিক ব্যক্তির সমাগম মেনে নেয়া হবে না। সর্বক্ষেত্রে সকলকে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। আইন অমান্যকারীদের বিষয়ে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী কঠোরতা প্রয়োগ করবে।

জেলা প্রশাসক মো. ওয়াহিদুজ্জামান বলেন, করোনাভাইরাস সংক্রমণে আমরা স্টেজ-২ তে আছি। আমরা যদি সামাজিক দূরত্ব বজায় না রাখি তবে আমাদের জনসংখ্যার ঘনত্বের কারণে করোনা খারাপ সংবাদ বয়ে আনতে পারে।

জেলা প্রশাসক জানান, লকডাউন অবস্থায় শুধুমাত্র ওষুধের দোকান খোলা রাখা যাবে। সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত ব্যাংকিং লেনদেন চলবে। সকাল ৮টা থেকে দুপুর পর্যন্ত কাঁচাবাজার ও নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দোকান খোলা রাখা যাবে।

এদিকে বুধবার বিকেল থেকে প্রশাসনের সহায়তায় কাজ শুরু করবে সেনাবাহিনী। শহরের জিরো পয়েন্ট সংলগ্ন টিচার্স ট্রেনিং ইনস্টিটিউটের অস্থায়ী ক্যাম্প থেকে তারা তাদের দায়িত্ব পালন করবেন।